রাজনৈতিক পরিস্থিতি অবনতির আশঙ্কা

সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার গাড় বহরে বার বার হামলার ঘটনায় দেশের রাজনৈতিক পরিস্থিতির আবারও অবনতি ঘটতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন দেশের বিশিষ্টিজনরা।

তারা বলছেন, এ ধরণের আরচণ অত্যন্ত দু:খজনক ও নিকৃষ্ট মানসিকতার পরিচয় এবং ক্ষমতা চিরস্থায়ী করতেই সরকার এ ধরণের ফ্যাসিবাদী আচরণ করছে। এতে নির্বাচনী পরিবেশ নষ্ট হচ্ছে। এতে করে রাজনৈতিক পরিস্থিতি আবারও অবনতির দিকে যাবে। সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন অনুষ্ঠান নিয়েও জনমনে সংশয় সৃষ্টি হবে বলে আশংকা প্রকাশ করেন তারা।

বিশিষ্ট নাগরিক ও সিনিয়র সাংবাদিক ড. মাহফুজুল্লাহ বিডি টুয়েন্টিফোর লাইভ ডটকমকে বলেন, খালেদা জিয়ার ওপর হামলা অত্যন্ত নিকৃষ্ট কাজ। এর চেয়ে বর্বরতা আর কিছুই হতে পারে না। গণতন্ত্রের উপর আঘাত ছাড়া এটা কিছুই নয়। সরকার ফ্যাসিবাদী কায়দায় ক্ষমতায় থাকতে চায়। সরকারি দলের লোকজনই সিটি করপোরেশন নির্বাচনের পরিবেশ নষ্ট করছে। তবে আমারা আশা করি নির্বাচন সুষ্ঠু হবে।

সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন) সম্পাদক ড. বদিউল আলম মজুমদার বিডি টুয়েন্টিফোর লাইভ ডটকমকে বলেন, এটা আর বলার অপেক্ষা রাখে না যে, এই ধরণের আচরণ নির্বাচনের পরিবেশকে কুলষিত করছে। নির্বাচন উপলক্ষ্যে দেশে শান্তির সু-বাতাস বইতে ছিল। সে পরিবেশ আবারও বিঘ্নিত হচ্ছে।

এদিকে লন্ডন সময় মঙ্গলবার রাতে এক বিবৃতিতে সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার ওপর হামলার ঘটনায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন খ্যাতনামা ব্রিটিশ আইনজীবী এবং হাউজ অব লর্ডসের সদস্য লর্ড কার্লাইল কিউসি।

তিনি এ ঘটনার নিরপেক্ষ তদন্ত ও বিচার দাবি করেন। একইসঙ্গে উন্নয়ন সহযোগী হিসেবে বাংলাদেশের রাজনৈতিক সংকট নিরসনে বৃটিশ সরকারকে জরুরী পদক্ষেপ নেয়ার আহ্বান জানান তিনি।

আজ বুধবার পঞ্চম দিনের মতো দল সমর্থিত প্রার্থীদের পক্ষে প্রচারণায় নামেন খালেদা জিয়া। তার গাড়ি বহর বাংলামটর মোড়ে আসার সঙ্গে সঙ্গে স্থানীয় যুবলীগ-ছাত্রলীগ ও আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরা জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু শ্লোগান দিয়ে লাঠি-ছোঁটা নিয়ে হামলা চালায়। এতে হামলাকারী দলের একজনসহ বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন।

এর আগে গতকাল মঙ্গলবার রাজধানীর নয়াপল্টনে পলওয়েল সুপার মার্কেটে মির্জা আব্বাসের পক্ষে প্রচারণা শেষ করে খালেদা জিয়া গাড়িবহর নিয়ে ফকিরাপুল মোড়ে আসেন। মোড় অতিক্রম করার সময় রাত সাড়ে ৮টার দিকে কয়েকজন দুর্বৃত্ত তার গাড়িবহর লক্ষ্য করে ইট-পাটকেল ছুড়ে মারে। পরে খালেদা জিয়ার গাড়িবহর গুলশানের বাসার দিকে রওয়ানা করে।

এদিকে সোমবার দক্ষিণের মেয়র প্রার্থী মির্জা আব্বাসের প্রচারণায় রাজধানীর কারওয়ান বাজের আসেন সাবেক এই প্রধানমন্ত্রী। সেখানে তাকে বহনকারী গাড়িসহ পুলিশের উপস্থিতেই তার বহরের বেশ কয়েকটি গাড়ি ভাংচুর করে দুর্বৃত্তরা। এতে খালেদা জিয়ার ব্যক্তিগত নিরাপত্তা রক্ষীসহ পাঁচজন আহত হন।

আসন্ন সিটি করপোরেশন নির্বাচনে দল সমর্থিত প্রার্থীদের পক্ষে প্রচারণায় গত শনিবার মাঠে নামেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। প্রচারের প্রথম দিনে গুলশান এলাকার বিভিন্ন মার্কেটে উত্তরের মেয়র প্রার্থী তাবিথ আউয়ালের পক্ষে প্রচারণা চালান তিনি। পরের দিন রোবার উত্তররা-১ নম্বরে প্রচারণায় যান তিনি। সেখানে- উত্তরা আওয়ামী লীগের সভাপতি তোফাজ্জল ও সাধারণ সম্পাদক হাবিব হাসানের নেতৃত্বে আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা কালো পতাকা হাতে নিয়ে বিক্ষোভ করেন এবং তাঁরা খালেদা জিয়ার গাড়ি ঘেরাওয়ের চেষ্টা করেন।পরে সন্ধ্যা ৭ টার দিকে উত্তরা থেকে আব্দুল্লাহ পুরের দিকে যাওয়ার সময় আবারও ছাত্রলীগ, যুবলীগ ও আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীদের বাধার মুখে পড়েন তিনি। পরে উত্তরা-৭ নম্বর সেক্টর থেকে বিমানবন্দরের দিকে ফিরে আসতে হয় খালেদা জিয়াকে।

 

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s